এবারের রোজায় পণ্যের দাম বাড়ার কোন কারণ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

in this Ramada there is no reason to increase price
Tag: There is no reason to increase the prices of the products in this Ramadan: Commerce Minister

আসন্ন রমজানে নিত্যপণ্যের দাম বাড়ার পেছনে কোনো কারণ নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

তিনি বলেছেন, রমজান মাস উপলক্ষে পণ্যের চাহিদার চেয়ে পর্যাপ্ত মজুত রয়েছে। কাজেই দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাবার কোনো কারণ নেই। আগামী ৬ তারিখ থেকে টিসিবি খোলা বাজারে পণ্য বিক্রি শুরু করবে।

মন্ত্রী আজ বুধবার সকালে শহরের গাজীপুর রোডে নিজ বাসভবনে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন। তিনি গত শুক্রবার রাতে নতুন বাজারের মনোহারী পট্টীতে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ওই মতবিনিময় সভা করেন।

এসময় ক্ষতিগ্রস্ত ৫২ জন ব্যবসায়ীদের মাঝে নগত প্রায় ১৫ লাখ টাকা বিতরণ করেন মন্ত্রী।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, চিনি, খেজুর, ডালসহ সব ভোগ্য পণ্য চাহিদার চেয়ে বেশি মজুত রয়েছে। তাই বাজার স্বাভাবিক থাকবে। কেউ যদি অধিক মুনাফার জন্য দাম বেশি রাখে তাহলে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এ সময় মন্ত্রী ভোলা খালের নব্যতা ফিরিয়ে আনার জন্য একটি প্রকল্প পাশ হয়েছে উল্লেখ করে বলেন, এই খালটি দিয়ে এক সময় অনেক বড় বড় নৌকা ছুটে চলতো। খালটিকে স্বাভাবিক অবস্থায় আনার জন্য সংস্কার করা হবে।

সভায় জেলা প্রশাসক মো. মাসুদ আলম সিদ্দিক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, পৌরসভার মেয়র মো. মনিরুজ্জামান, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.মোশারেফ হোসেন বক্তব্য দেন।

এদিকে, বাণিজ্যমন্ত্রী যখন এই কথা বলছেন, ঠিক তখনই রাজধানীর বাজারগুলো নিত্যপণ্যের মধ্যে বেশ কিছু পণ্যের দাম বাড়তির দিকে।

সরকারের বিপণন সংস্থা-টিসিবির তথ্য অনুযায়ী গেলো সপ্তাহের চেয়ে এ সপ্তাহে মুরগী (ব্রয়লার), পেঁয়াজ (দেশি), পেঁয়াজ (আমদানি) ও আমদানি করা রসুনের দাম বেড়েছে।

গত সপ্তাহে যেখানে ব্রয়লার মুরগীর দাম ছিল কেজিপ্রতি ১৩৫ থেকে ১৪৫ টাকা, এ সপ্তাহে তা বিক্রি হচ্ছে ১৪৫ থেকে ১৫৫ টাকা দরে, দেশি পেঁয়াজ, আমদানি পেঁয়াজ ও রসুনের দাম বেড়েছে কেজিতে ৫ থেকে ১৫ টাকা।

তবে আমদানি করা বড় দানার ডালের দাম হ্রাস পেয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here